প্রসঙ্গ - অর্জুনজয়ী স্বপ্না বর্মন। Arjun Awardee Swapna Barman

VSarkar
0
arjun awardee swapna

অর্জুনজয়ী স্বপ্না বর্মন / Swapna Barman

Writer: Partha Roy (Guddu)

স্বপ্না বর্মন কে হেনস্থা ও প্রশ্ন উত্তর পর্ব

প্রশ্ন: স্বপ্নাকে হেনস্থা করা খবর মুখমন্ত্রী কত ঘন্টা পর এবং কিভাবে পেলো?
উত্তর: প্রায় 24 ঘন্টা পর বংশীবদনের ফোন এবং পেপারের কাটিং দেখে। 

প্রশ্ন: তাহলে উত্তরবঙ্গের সমস্ত রাজবংশী বিধায়ক, নেতা, মন্ত্রীরা কি শোনেনি?
উত্তর: গোটা উত্তরবঙ্গে রাজবংশী / কামতাপুরি সমাজ সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ তীব্র থেকে তীব্রতর জানাচ্ছে, তাই না শোনার কিছুই নেই। 

প্রশ্ন: তাহলে মুখ্যমন্ত্রীকে জানায়নি কেনো?
উত্তর: এরাও বাম আমলের মতো বিধানসভার লাস্ট বেঞ্চে বসে মেও মেও করা আর বাড়ি এসে ভাষণ মারার অভ্যাসে অভ্যস্ত। 

প্রশ্ন: তাহলে কি পুরোটাই শাসক দলের গেইম প্লানিং?
উত্তর: না না এটার সঠিক বিশ্লেষণ করা আপাতত সম্ভব নয়, কেননা লালুজির একটা কথা আমাদের মাথায় রাখতে হবে যে,রাজনীতির ওপর রাজনীতি। তার ওপরে কূটনীতি। 

প্রশ্ন: আপনি কি করে নিশ্চিত হলেন যে এটা রাজ্য শাসক দলের গেম প্লানিং না?
উত্তর: কেননা বিরোধী পার্টির মুচকি মুচকি হাসা ব্যাকা চোখটাও তো দেখতে হবে স্যার। 

প্রশ্ন: মানে আপনি বলতে চাচ্ছেন উত্তরবঙ্গের 7-8 খানা সাংসদ থেকে শুরু করে বিরোধী দলের নেতাদের নিরাবতা বা খিল্লি?
উত্তর: সত্যি স্যার আপনিও পারেন। আপনি তো রাজনীতিতে গেলে অনেক বড় মাপের নেতা হয়ে যাবেন দেখছি। 

প্রশ্ন: নানা আপনি বলুন না,আপনার বয়ান ছাড়া তো আর আমি কিছু লিখতে পারি না?
উত্তর: কেনো লিখতে পারেন না? আপনারা তো কাঠ না দেখেই শাল কাঠ লিখতে পারেন। স্বপ্নার বয়ান না নিয়েই হামলাকারী অফিসারের বয়ান নিয়ে ব্যাগ গুটিয়ে পালিয়ে যেতে পারেন। 

প্রশ্ন: স্যার আপনি মনে হয় রেগে আছেন। যাই হোক ইন্টারভিউ শেষের দিকে। তাই আপনাদের রাজবংশী সাংসদদের নিয়ে কিছু বলুন। 
উত্তর: হুম। আমাদের সাংসদরা নীরবতা পালন করছে। এত্তো নীরবতা, এত্তো নীরবতা মনে হয় যেনো দিল্লিতে শপথ গ্রহণ করছে এক এক করে রাষ্ট্রপতির সামনে। 

প্রশ্ন: স্যার আপনি তো রসিকপ্রান মানুষও বটে?
উত্তর: ধুর মশাই, আমাদের জলপাইগুড়ির আদিত্যনাথ এর বা পায়ের গোলটা দেখেছেন?

প্রশ্ন: মানে স্যার বুজলাম না, আদিত্যনাথ কবে ফুটবুল খেলা শুরু করলো?
উত্তর: নাহ, নাহ মশাই সেই যোগী স্যারের কথা বলছি না। আমাদের প্রিয় বিরোধী দলের জলপাইগুড়ি সভাপতি বাপি গোস্বামী কথা বলছি। 
গোস্বামী স্যার দিলু দার মতো সোজা সাপ্টা মানুষ। 
কারোর অনুমতি না নিয়ে বলেই ফেললেন "স্বপ্নার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঠিক কাজই করেছে বন আধিকারিকরা" 

প্রশ্ন: স্যার, তারপরেও আপনাদের সাংসদরা কিছুই বয়ান দিলো না সোশ্যাল নেটওয়ার্কে। 
উত্তর: হুম জাতির সেন্টিমেন্ট এর ভোটকে লক্ষ করে আমাদের প্রিয় সহজ সরল ভদ্র লোক ডাক্তার জয়ন্ত বাবু আজ স্বপ্নার বাড়িতে গেলেও মিডিয়াকে এড়িয়ে যান এবং বলেন প্রেস মিডিয়ায় বলা হবে। 

প্রশ্ন: স্যার আপনাদের তো রাজবংশী প্রাক্তন CPIM বিধায়কও অনেক ছিলেন,তাঁদের কোনো বয়ান পাওয়া গিয়েছে কি?
উত্তর: হুম, ওদের বয়ান তখনি পাওয়া যাবে,যখন পদ্মা নদী থেকে ইলিশের সাথে কিছু মানুষও ভেসে আসবে। তখনি তাঁদের কান্নাকাটি শুরু হবে। 

প্রশ্ন: স্যার আপনাদের রাজবংশী কংগ্রেসি প্রতিনিধির বয়ান কিছু পাওয়া গিয়েছে কি?

উত্তর: বাব্বা, ওনারা তো বিধান চন্দ্র সাহেবের লোক। ভীষণ চালাক। পিঠ বাঁচিয়ে কথা বলে। 
হুম, বলেছিল সর্বভারতীয় পরীক্ষায় 14 নম্বর রেঙ্ক করা প্রাক্তন IAS অফিসার সুখবিলাস বাবু-স্বপ্নার বয়স কম,ও কিছু জানে না। 

প্রশ্ন: আরও কোনো রাজবংশী কংগ্রেসি নেতার বয়ান?
উত্তর: তাহলে আপনাকে আরও এক ধাপ এগিয়ে বলি। ওনাদের বয়ান কোচবিহার রাসমেলার মাঠে পাবেন, দেখবেন কোনদিন যেনো আবার বলে না বসে যে, গোটা উত্তরবঙ্গ মিলে একটাই ডিস্ট্রিক করা হবে। এবং রাজবংশীদের ST মর্যাদা দেওয়া হবে। যেমনটা বিধান সাহেব বলেছিলেন 1950 সালে আজ থেকে কোচবিহার/কামতাপুর রাজ্য পশ্চিমবঙ্গে নিযুক্ত করা হলো এবং রাজবংশী দের SC মর্যাদা দেওয়া হবে। 

প্রশ্ন: বলছি স্যার, এই যে আজ যা হলো তাতে আপনাদের মতো নবপ্রজন্মদের কি কোনো ক্ষোভ বা ভূমিকা সমন্ধে কিছু ম্যাসেজ দেবেন?
উত্তর: অবশ্যই জানাব, আজকের ফেসবুক, কিলার আর সোশ্যাল নেটওয়ার্ক এর জন্যই পত্রিকায় এতো মানুষের মন্তব্য পাচ্ছেন। নাহলে কারোর মন্তব্য হয়তো পাওয়া যেতো না। কিংবা মিডিয়া ফোনও করতো না রাজবংশী প্রতিনিধি দের। কোনদিকের জল যে কোনদিকে গড়িয়ে যেতো, বোঝাই মুশকিল। আসলে কি জানেন স্যার গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ তথা মিডিয়াকে আমাকে ভীষণ ভয় লাগে। তাই তো স্যার সোশ্যাল নেটওয়ার্ক কে আমি পঞ্চম স্তম্ভ মনে করি। দেখলেন তো স্বপ্নার বাড়ির ভিডিও থেকেই নিমেষেই cid মতো সোশ্যাল নেটওয়ার্ক ভালোমন্দ বুঝে গেলো। 

প্রশ্ন: স্যার তাহলে এখানেই শেষ করছি। আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ। 
উত্তর: আপনাকেও ধন্যবাদ, কিন্তূ ব্যাটা শুনে রাখ, যা বয়ান দিলাম তাই যেনো কাল সকালে পেপারে দেখি। এমনটা নয় যে ওয়ারা এক বিচ্ছিন্নতাবাদীর বয়ানে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল। 
বেটা লিখবি এক সচেতনশীল অরাজনৈতিক রাজবংশী নাগরিকের বক্তব্য। কেমন ..

Post a Comment

0Comments

Post a Comment (0)